বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৮:৩৫ পূর্বাহ্ন

র‌্যাবের ডিজিসহ পুলিশের ৭০ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে প্রত্যাহারের দাবি ঐক্যফ্রন্টের

ad

সিএন ডেস্ক।।

র‌্যাবের ডিজি বেনজির আহমেদ, পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মোখলেসুর রহমান, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াসহ পুলিশের ৭০ জন কর্মকর্তাকে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি চিঠি বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) দুপুরে নির্বাচন কমিশনে জমা দেয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের নেতৃত্বাধীন একটি প্রতিনিধি দল। চিঠিতে এসব কর্মকর্তাদের দলবাজ ও বিতর্কিত বলে অ্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়— সরকারের সাজানো পুলিশ প্রশাসনের অতি দলবাজ ও চিহ্নিত বিতর্কিত কর্মকর্তারা নির্বাচনি মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন কিন্তু নির্বাচন কমিশন এসব কর্মকর্তাদের প্রত্যাহারে কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। চিঠিতে এসব কর্মকর্তাদের প্রত্যাহার করে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সকল প্রকার দায়িত্ব থেকে বিরত রাখার দাবি জানানো হয়।

প্রত্যাহারের দাবি ওঠা অন্যান্য কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন— পুলিশের অতিরিক্ত আইজি ইকবাল বাহার, নৌ-পুলিশের ডিআইজি শেখ মো. মারুফ হাসান, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল আহসান, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফরুক, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি দিদার আহম্মেদ, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এম খুরশিদ হোসেন, কেএমপি’র কমিশনার হুমায়ন কবির, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম, সিএমপি’র কমিশনার মাহবুবুর রহমান, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মির রেজাউল আলম, ঢাকা সিটি এসবির ডিআইজি মো. আলী মিয়া, রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাশ ভট্টাচার্য, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়, হেড কোয়ার্টারের ডিআইজি হাবিবুর রহমান, খ. মহিদউদ্দিন ও আনোয়ার হোসেন, আরএমপি’র ডিআইজি হাফিজুর রহমান, ডিএমপির ডিআইজি আব্দুল বাতেন, র‌্যাব-৪ এর অধিনায়ক চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির, ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার শেখ নাজমুল আলম, খুলনা রেঞ্জের এডিশনাল ডিআইজি এ কে এম মাহিদুল ইসলাম, পুলিশ হেড কোয়ার্টারের এডিশনাল ডিআইজি মনিরুজ্জামান, সিলেট রেঞ্জের এডিশনাল ডিআইজি জয়দেব কুমার ভদ্র, ঢাকা রেঞ্জের এডিশনাল ডিআইজি মো. আসাদুজ্জামান, ডিবির জয়েন্ট কমিশনার মাহবুব আলম, সিআইডির এসপি মোল্লা নজরুল ইসলাম, টুরিস্ট পুলিশের এএসপি আলতাফ হোসেন, তেজগাঁও এর ডিসি (ডিএমপি) বিপ্লব কুমার সরকার, ডিএমপি’র ডিসি হারুন-অর রশিদ, রমনার ডিসি মারুফ হোসেন সরদার, সিএমপির ডিসি এসএম মেহেদী হাসান, ডিএমপির ডিসি খন্দকার নুরুন নবী, সিএমপির ডিসি ফারুকুল হক, কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ডিসি প্রলয় কুমার জোয়াদ্দার, ডিএমপির ডিসি এসএম মুরাদ আলী, ডিএমপির এডিশনাল ডিসি শিবলি নোমান।

এছাড়া এসপিদের মধ্যে রয়েছেন— ঢাকার এসপি শাহ মিজান সফি, নারায়ণগঞ্জের মো. আনিসুর রহমান, মুন্সীগঞ্জের এসপি যায়েদুল আলম, নরসিংদীর মিরাজ, টাঙ্গাইলের রঞ্জিত কুমার রায়, মাদারীপুরের সুব্রত কুমার হাওলাদার, ময়মনসিংহের শাহ আবিদ হোসেন, শেরপুরের আশরাফুল আজিম, সিলেটের মনিরুজ্জামান, বরিশালের সাইফুল ইসলাম, ভোলার মুক্তার হোসেন, খুলনার এসএম শফিউল্লাহ, সাতক্ষীরার সাজ্জাদুর রহমান, বাগেরহাটের পঙ্কজ চন্দ্র রায়, যশোরের মঈনুল হক, ঝিনাইদহের হাসানুজ্জামান, কুষ্টিয়ার আরাফাত তানভির, চট্টগ্রামের নূরে আলম মিনা, নোয়াখালীর ইলিয়াস শরিফ, ফেনীর এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার, কুমিল্লার সৈয়দ নরুল ইসলাম, রংপুরের মিজানুর রহমান, দিনাজপুরের সৈয়দ আবু সায়েম, ঠাকুরগাঁওয়ের মনিরুজ্জামান, রাজশাহীর শহীদুল্লাহ, চাপাইনবাবগঞ্জের মোজাহেদুল ইসলাম, নওগাঁর ইকবাল হোসেন, নাটোরের সাইফুল্লাহ, বগুড়ার আশরাফ আলী, সিরাগঞ্জের টুটুল চক্রবর্তী এবং পাবনার এসপি রফিক ইসলাম।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2017 CoxBDNews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com