বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ১০:২০ পূর্বাহ্ন

মাঠে যেসব কাজ করবে সেনাবাহিনী

অনলাইন ডেস্ক ◑ করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় আজ বুধবার থেকে সারা দেশে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা করছে সেনাবাহিনী। বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় বর্তমানে বাংলাদেশের সংক্রমণ এবং বিস্তৃতির ঝুঁকি বিবেচনায় উদ্ভূত এই ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকারের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আইএসপিআর থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে তাদের কাজের বর্ণনা তুলে ধরে আরও জানানো হয়, সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক ইন এইড টু সিভিল পাওয়ারের আওতায় আজ থেকে দেশের সকল বিভাগ এবং জেলায় করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তার উদ্দেশ্যে সেনা মোতায়েনের অংশ হিসেবে সেনাবাহিনী প্রয়োজনীয় সমন্বয় করবে। সেনাবাহিনীর সদস্যরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিবর্গের তালিকা প্রস্তুত এবং বিদেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের কোয়ারেন্টাইনে থাকা নিশ্চিতকল্পে স্থানীয় প্রশাসন কর্র্তৃক গৃহীত পদক্ষেপসমূহে সহায়তা ও সমন্বয় করবে। এ ছাড়াও সেনাবাহিনী বিভাগ এবং জেলা পর্যায়ে প্রয়োজনে মেডিকেল সহায়তা প্রদান করবে।

আইএসপিআরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নৌবাহিনী উপকূলীয় এলাকায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তায় কাজ করবে। বিমানবাহিনী হাসপাতালের প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসামগ্রী ও জরুরি পরিবহন কাজে নিয়োজিত থাকবে। কোয়ারেন্টাইন নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে যোগাযোগ নম্বর : আইএসপিআর অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, সেনাবাহিনী কর্তৃক কোয়ারেন্টাইন নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে যোগাযোগের জন্য ইতিপূর্বে প্রদত্ত সকল নম্বরের পরিবর্তে শুধু ০১৭৬৯০৪৫৭৩৯ নম্বরে যোগাযোগের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সেনাবাহিনীর সদস্যরা সিভিল প্রশাসনের সঙ্গে মাঠে কাজ করবেন  ‘একসাথে ৫-৭ জনের বেশি মানুষ জড়ো না হওয়ার পাশাপাশি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া যাতে লোকজন বাসা-বাড়ি থেকে বের না হয়; সেটা নিশ্চিত করবে সেনাবাহিনী। জরুরি প্রয়োজনে বের হলে লোকজনকে নির্দিষ্ট দূরত্ব মেনে চলাফেরা করতে হবে। তবে কোনোভাবেই এক জায়গায় অধিক লোক জড়ো হতে পারবে না।’ হোম কোয়ারেন্টাইনে যারা আছে, সেখানে অনেকেই কোয়ারেন্টাইন মানছে না। অনেককে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে সাজা দেওয়া হয়েছে। এরপরও অনেকে বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছে। সারা দেশের  সিভিল প্রশাসনকে সেনাবাহিনী সব ধরনের সহায়তা দেবে। সব প্রবাসীর হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে সরকার সেনাবাহিনীকে মাঠে নামিয়েছে।

কেউ নিয়ম না মেনে বাড়ির বাইরে বের হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। হাসপাতাল, ফার্মেসি, কাঁচাবাজার, কৃষকদের কীটনাশকের দোকান, সীমিত আকারে মুদি দোকান খোলা থাকবে।’

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2017 CoxBDNews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com