শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:২৮ পূর্বাহ্ন

শেখ হাসিনার রাজনীতি উন্নয়ন, বিএনপি-জামাতের মানুষ হত্যা-শাজাহান খান

শেখ হাসিনার রাজনীতি উন্নয়ন, বিএনপি-জামাতের মানুষ হত্যা-শাজাহান খান

শ.ম.গফুর/এ.রহমান ঘুমধুম সীমান্ত থেকে ফিরে।।

নৌ-পরিবহণ মন্ত্রী ও মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান বলেছেন শেখ হাসিনার রাজনীতি দেশের উন্নয়ন করা।মানুষের কল্যাণে কাজ করা। অপরদিকে বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতি হচ্ছে মানুষ হত্যা করা। মন্ত্রী শাজাহান খান ৭ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫ টায় উখিয়ার লাগোয়া নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম স্থল বন্দর স্থান পরিদর্শন শেষে এলাকাবাসীর সাথে মতবিনিময় সভায় উপরোক্ত মন্তব্য করেছেন।তিনি(শাজাহান খান)আরো বলেছেন,শেখ হাসিনার সরকার কালীন সময় উন্নয়নে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।আজকে দেশব্যাপী উন্নয়নের শোভা লক্ষ্যণীয়।তাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের খেটে খাওয়া মানুষ থেকে শুরু করে সকল পেশার মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ।আবারো শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় নেবে দেশের জনগণ।কেউ আওয়ামীলীগের বিজয় ঠেকাতে পারবেনা। খালেদা জিয়ার আমলের কথা উল্ল্যেখ করে বলেছেন,বিএনপি-জামায়াত রাজনীতি করছে মানুষ হত্যার মধ্যদিয়ে। তাদের অনিয়ম,দুর্নীতি,লুটপাট, বিদেশে অর্থ পাচার করাই তাদের কে ডুবিয়েছে।তারা জন বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। খালেদা জিয়া এতিমের হক আত্নসাত করেছে।এসব মামলায় খালেদা জিয়ার এই পরিনতি।দেশের সংবিধান মতে রাষ্ট্র চলবে।প্রচলিত আইনে খালেদা জিয়ার বিচার হচ্ছে।সেখানে আওয়ামীলীগের কোন হাত নেই।খালেদা জিয়ার শাসনামলে আওয়ামীলীগের জনপ্রিয় নেতা,বাংলার শ্রমিক সমাজের প্রান পুরুষ আহসান উল্লাহ মাস্টার কে হত্যা করেছে।সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এমএস কিবরিয়া, মনজুরুল ইমামের মত জনপ্রিয় নেতাদের হত্যা করে আওয়ামীলীগ শুন্য করতে চেয়েছিল। জননেত্রী শেখ হাসিনাকে একাধিকবার হত্যা চেষ্টা চালিয়েছে বিএনপির শাসনামলে।গাড়ী পুড়িয়ে মানুষ হত্যা হচ্ছে খালেদা জিয়ার রাজনীতি আর উন্নয়ন হচ্ছে শেখ হাসিনার রাজনীতি। শুক্রবার বিকেল ৫ টায় মৈত্রী সড়ক চত্বরে ঘুমধুম ইউপির চেয়ারম্যান জাহাংগীর আজিজের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঘুমধুম বাসীর উদ্দ্যেশ্যে করে নৌ-পরিবহণ মন্ত্রী শাজাহান খান আরো বলেছেন,নৌকায় ভোট দিন উন্নয়ন হবে।নৌকায় ভোট দিলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে।পেট ভরে খেতে পারে। তিনি ঘুমধুম বাসীকে আশ্বস্ত করে বলেছেন শুধু ঘুমধুমেই স্থল বন্দর নয়, নাইক্ষ্যংছড়ির চাকঢালায় ও একটি স্থল বন্দর হবে।দেশে ২৩ টি স্থল বন্দরের মধ্যে ১২টি পুরোদমে চালু হয়েছে।মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্প হলো এগুলো।মৈত্রী সড়কের কাজ শেষ পর্যায়ে। চালু হতে বেশীদিন সময় লাগবেনা।স্থল বন্দরও হবে।এসময় আরো বক্তব্য রাখেন পার্বত্য বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বাবু বীর বাহাদুর এমপি,বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তপন কুমার চক্রবর্তী।উপস্থিত ছিলেন বান্দরবানের জেলা প্রশাসক দাউদউল ইসলাম,বান্দরবানের পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার,জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো ইসলাম বেবী,যুগ্ন সম্পাদক লক্ষীপদ দাশ,নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি,আওয়ামীলীগ নেতা তসলিম ইকবাল
চৌধুরী,আবু তাহের কোম্পানি,ইমরান মেম্বার, ঘুমধুম আওয়ামীলীগ সভাপতি হারেজ,জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি কাউসার সোহাগ,নাইক্ষ্যংছড়ি যুবলীগ সভাপতি জসিম উদ্দিন,সম্পাদক আলী হোসেন মেম্বার,ছাত্রলীগ সভাপতি বদর উল্লাহ,সম্পাদক উবাচিং চাক,ঘুমধুম ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি ছৈয়দুল বশর, সাধারণ সম্পাদক নুর হোসেন,ছাত্রলীগ নেতা বোরহান আজিজ,জিশানুল হক, সোহেল রানাসহ জেলা,উপজেলা,ইউনিয়নের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017 CoxBDnews.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com